সিরাজদীখানে খাল দখল করে মাটি ভরাট

৪২ Views

আব্দুল্লাহ আল মাসুদ::

মুন্সীগঞ্জের সিরাজদীখানে সরকারী খালে বাধ দিয়ে মাটি ভরাট করার অভিযোগ পাওয়া গেছে নুর করীম নামে স্থানীয় এক প্রভাবশালীর বিরুদ্ধে। এছাড়া জমির শ্রেণী পরিবর্তন না করে বিনা অনুমতিতে ফসলী জমি কেটে পুকুর বানানোর অভিযোগ রয়েছে তার বিরুদ্ধে।

শনিবার সরেজমিনে দেখা যায়, উপজেলার জৈনসার ইউনিয়নের খিলগাঁও চৌরাস্তা সংলগ্ন পূর্ব পাশের খালটির পানি ব্যবহার করে শুকনো মৌসূমে জৈনসার ইউনিয়নের কৃষকরা তাদের কৃষি পণ্য উৎপাদন করে আসছেন। কিন্তু খালটি জমির পাশে হওয়ায় নিজেদের সম্পত্তি দাবী করে খালের উপর বাধ দিয়ে মাটি ভরাট করছেন প্রভাবশালী নুর করীম ও তার ছেলে ফয়সাল।

এলাকাবাসী এ নিয়ে বেশ কয়েক বার বাধা দিলেও কোন লাভ হয়নি। অনেকটা দাপটের সাথেই চালিয়ে যাচ্ছেন মাটি ভারাটের কাজ।
এলাকাবাসী অভিযোগ, নুর করীম ও তার ছেলে খালের মূখে বাধ দিয়ে মাটি ভরাট করছে। এতে এলাকার কৃষকদের ফসল উৎপাদনে ক্ষতির সম্মূক্ষিন হতে হচ্ছে। যে স্থানটিতে তারা বাধ দিয়ে মাটি ভরাট করছে সেই স্থানটি হলো খালের মূখ।

কয়েক বছর আগে সরকারী অনুদানে পানি চলাচলের জন্য সেখানে মোটা পাইপ বসানো হয়। নুর করীম ও তার ছেলে পানি চলাচলের জন্য পাইপ না বসিয়ে উল্টো পানি চলাচলের রাস্তা তথা খাল বন্ধ করে দিয়েছে। শুধু তাই নয় খালের পাশে তার মালিকানা জমিতেও তিনি ভেকু বসিয়েছেন পুকুর বানানো জন্য।

এবিষয়ে নুর করীমের ছেলে ফয়সাল বলেন, সবাই ক্ষেত কাটতে পারলে আমরা কেন পারবো না! ওইটা খাল না আমাদের সম্পত্তি। তাই ভরাট করছি। পানি বের হওয়ার জন্য পাইপ এনেছি মাটি ভরাট করে মাটি শক্ত হলে তার পর বসাবো।

জৈনসার ভূমি অফিসের অফিস সহকারী মো. মিজান জানান, বিষয়টি আপনার মাধ্যমে জানলাম। আমি এখনি নায়েব সাহেবকে জানাচ্ছি।

জৈনসার ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান রফিকুল ইসলাম দুদু বলেন, নুর করীম যদি এখান দিয়ে পাইপ বসিয়ে নেয় তাহলে আমার কোন আপত্তি নেই। আর যদি পাইপ না দেয় তাহলে আকটাবো। তারপরও আজকে সেখানে গিয়ে দেখবো।